চোখ ও আলো সম্পর্কিত প্রশ্ন

1.মানুষের চোখ কাজ করে আলোর-
(A) প্রতিসরাঙ্কের উপর
(B) প্রতিফলনের উপর
(C) প্রতিসরণের উপর
(D) প্রতিফলের উপর

Ans- (C) প্রতিসরণের উপর

2.মানুষের চোখের আইবল -এর ব্যাস কত?
(A) 4.3 Cm
(B) 3.5 Cm
(C) 4 Cm
(D) 2.5 Cm

Ans- (D) 2.5 Cm (Close to According to NCERT)
(মানুষের চোখের ব্যাসার্ধ এর Half হয়ে যাবে অর্থাৎ 2.5/2)।

3.নীচের কোন অংশ দিয়ে আলোকরশ্মি চোখের ভিতরে প্রবেশ করে?
(A) কর্নিয়া দিয়ে
(B) আইবল দিয়ে
(C) পিউপিল দিয়ে
(D) রড কোষ দিয়ে

Ans- (A) কর্নিয়া দিয়ে
(মানুষের চোখের সামনের ভাগকে বলা হয় কর্নিয়া।যেটি আকারে উত্তল হয়।
* কোনো বাইরের বস্তু থেকে আগত আলোকরশ্মি কর্নিয়া দিয়েই চোখের ভিতরে প্রবেশ করে)।

4.হটাৎ করে জোরালো আলো চোখের উপর পড়লে নীচের কোনটি ঘটে?
(A) পিউপিল প্রসারিত হয়
(B) রেটিনা সংকুচিত হয়
(C) পিউপিল সংকুচিত হয়
(D) রেটিনা প্রসারিত হয়

Ans- (C) পিউপিল সংকুচিত হয়

5.মানুষের চোখে কোথায় প্রতিবিম্ব তৈরি হয়?
(A) আইরিশে
(B) রেটিনাতে
(C) কর্নিয়াতে
(D) লেন্সে

Ans- (B) রেটিনাতে
(মানুষের ক্ষেত্রে রেটিনা প্রতিবিম্ব পর্দা হিসেবে কাজ করে এবং রেটিনাতেই প্রতিবিম্ব উৎপন্ন হয়।
* রেটিনার যে Blind spot থাকে সেখানে অপটিক নার্ভ রেটিনার সাথে যুক্ত হয়।Only এই অংশ বাদ দিয়ে রেটিনার যেকোনো অংশেই প্রতিবিম্ব উৎপন্ন হতে পারে।
* রেটিনাতে রড কোষ এবং কোণ কোষ থাকে সেন্সার হিসেবে।
* মনে রাখবে অপটিক নার্ভ এবং রেটিনার সংযোগস্থলে কোনো কোষ থাকে না)।

6.মানুষের চোখের লেন্সটি হলো-
(A) অবতল লেন্স
(B) উত্তল লেন্স
(C) দ্বি-অবতালাকার লেন্স
(D) দ্বি-উত্তালাকার লেন্স

Ans- (B) উত্তল লেন্স
(এটি প্রাকৃতিক উত্তল লেন্স হয়।
* মানুষের চোখের লেন্স একপ্রকারের জেলি সদৃশ পদার্থ যা প্রোটিন দিয়ে তৈরি)।

7.মানুষের চোখের অভিসারী (লেন্স) ক্ষমতা নিয়ন্ত্রিত হয় নীচের কোনটি দ্বারা?
(A) আইরিশ
(B) রেটিনা
(C) কর্নিয়া
(D) সিলিয়ারি মার্সেল

Ans- (D) সিলিয়ারি মার্সেল বা সিলিয়ারি পেশী।
(আমাদের চোখে যে লেন্স থাকে তাকে মোটা বা সরু করে সিলিয়ারি পেশী (মার্সেল)।
* যে রশ্মিগুচ্ছ গুলো অপসারিত বা সমান্তরাল তাদেরকে একটা বিন্দুতে পরিণত করার ক্ষমতাকে বলা হয় -“Converging Power” (অভিসারী ক্ষমতা)।

8.দূরের বস্তুকে দেখার জন্য মানুষের চোখের লেন্স-
(A) মোটা হয়ে যায়
(B) পাতলা হয়ে যায়
(C) একই থাকে
(D) প্রথমে পাতলা তারপর মোটা হয়ে যায়

Ans- (B) পাতলা হয়ে যায়
(দূর থেকে আসা আলো একে অপরের সাথে সমান্তরাল হয়।সমান্তরাল মানে Already কিছুটা হলেও গোছানো আছে।তো গোছানো জিনিসকে আবার গোছাতে গেলে কম পাওয়ারের প্রয়োজন হবে।তারমানে এখানে তোমাদের Answer পাতলা হয়ে যাবে।
* তোমরা দুটো জিনিস মাথায় রাখবে-
(i) যে পাতলা হবে তার পাওয়ার কম হবে
(ii) আর যে মোটা হবে তার পাওয়ার বেশি হবে)।

9.– — — সেমির থেকে চোখের কাছাকাছি বস্তুকে রাখলে সেটি দেখা অসম্ভব।
(A) 20 Cm
(B) 35 Cm
(C) 25 Cm
(D) 26 Cm

Ans- (C) 25 Cm
(25 সেমি থেকে অনন্ত দূর দেখা সম্ভব কিন্তু 25 সেমির কম হলে দেখা সম্ভব নয়)।

10.কাছাকাছি অবস্থিত কোনো বস্তুর প্রতিবিম্ব রেটিনাতে তৈরি হওয়ার জন্য-
(A) লেন্স এবং রেটিনার মধ্যে দূরত্ব বৃদ্ধি পায়।
(B) লেন্স এবং রেটিনার মধ্যে দূরত্ব হ্রাস পায়।
(C) লেন্স আরো বেশি মোটা হয়ে যায়।
(D) লেন্স আরো বেশি পাতলা হয়ে যায়।

Ans- (C) লেন্স আরো বেশি মোটা হয়ে যায়।
(দেখো কোনো বস্তুর প্রতিবিম্ব রেটিনাতে তৈরি হওয়ার মানেই বস্তুটাকে দেখতে পাওয়া।কারণ যে প্রতিবিম্ব আমরা রেটিনাতে দেখতে পাবো সেটা উল্টো হলেও পরবর্তীকালে ব্রেনে গিয়ে সেটা সোজা হয়ে যায়।
* বিষয় গুলি মাথায় রাখবে- কাছাকাছি কোনো বস্তু থেকে যখন রশ্মি বেড় হয় সেটা এদিক ওদিক ছিটকে যায়।অতিরিক্ত দূরত্ব না পেরোনোর কারণে একে অপরের সমান্তরাল হওয়ার সুযোগ পায় না।অর্থাৎ অগোছালো বা অপসারিত হয়।আর অগোছালো মানেই বেশি খাটনীর প্রয়োজন হয়।আর বেশি খাটনী করতে গেলে লেন্সকে মোটা করতে হয়)।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Don`t copy text!